সন্তান পালনের জন্য ৪৩ বছর “পুরুষ” সেজে রইলেন মা, সেরা মায়ের সন্মান দিলো সরকার

মা হওয়া নয় মুখের কথা। সন্তানের দায়িত্ব পালনের জন্য এবং সন্তানকে বড় করে তোলার জন্য মাকে কত কিছুই না করতে হয়। যে কোনো কঠিন কাজ, কঠোর পরিশ্রমের কাজ কিংবা অসম্ভব কোনো কিছুও মা যেন তার সন্তানের জন্য সহ'জেই সম্ভব করে তোলেন। যেমনটা করে দেখালেন মিশরের এই মহিলা। সন্তানকে বড় করে তোলার জন্য তিনি ৪৩ বছর ধরে পুরুষ সেজে রইলেন। ৪৩ বছর ধরে পুরুষ সেজে বাইরে কাজ করে সন্তানের প্রতি পালন করেছেন তিনি।

সন্তানের জন্য এই মিশরীয় মহিলার আত্ম বলিদান কার্যত সারা বিশ্বকে অ'বাক করে দিয়েছে। মিশরের ওই মহিলার নাম সিসা। বিয়ের মাত্র কয়েক বছরের মধ্যেই সীসার স্বামীর মৃ'ত্যু হয়। সন্তানকে নিয়ে সেই সময় অথই জলে পড়ে গিয়েছিলেন তিনি। সিসার পরিবারের সদস্যরা অবশ্য তার আরেকবার বিয়ে দিতে চেয়েছিলেন। তবে সিসা সন্তানের মুখের দিকে তাকিয়ে দ্বিতীয়বার বিয়ের পিঁড়িতে বসতে চাননি। সেই সময়ে শুরু হয়েছিল তার কঠিন জীবন সংগ্রাম।

হাজ্জা সিসা। ছবি: সংগৃহীত

একজন একা মহিলা হিসেবে সন্তান প্রতিপালন করা সিসার পক্ষে সহ'জ ছিল না। কারণ সমাজ সেই অনুমতি দেয় না। যে কারণে সিসা এক অদ্ভুত সিদ্ধান্ত নেন। মা'থায় পাগড়ী বেঁধে পুরুষের মতো সাজ পোশাক করে কাজে নেমে যান তিনি। প্রথম প্রথম জুতো সারাইয়ের কাজ করতেন। সিসা জানাচ্ছেন, প্রথম প্রথম পুরুষের সাজ সাজতে তার খুব ক'ষ্ট হতো। তবে সন্তান প্রতিপালনের জন্য এর থেকে আর কোনো উপায় সিসার কাছে খোলা ছিল না।

পুরুষদের জামা কাপড় পড়ে একজন মুচি হিসেবে কাজ করা শুরু করে

সিসা যে পুরুষ নন, তিনি একজন মহিলা, একথা তার প্রতিবেশীরা কেউ জানতে পারেননি। ৪৩ বছর ধরে পুরুষের বেশেই কাটিয়ে দিয়েছেন তিনি। একা সন্তান প্রতিপালন করেছেন। একজন মা হিসেবে তার এই অবদানের জন্য সারা বিশ্ব তাকে কুর্নিশ জানাচ্ছে। মিশরের সরকার সম্প্রতি সিসাকে ‘দেশের সেরা মা’ এর সম্মান প্রদান করেছে। সিসার বয়স বর্তমানে ৮৫ বছর। সন্তানের প্রতি তার এই দায়িত্ববোধের জন্য সারা বিশ্ব তাকে স্যালুট জানাচ্ছে।

Back to top button