এই সাকিব কি সেই সাকিব!

আগামী মে মাসে বাংলাদেশের মাটিতে তিনটি ওয়ানডে খেলবে শ্রীলঙ্কা। তার আগে এপ্রিলে সেখানে গিয়ে দুটি টেস্ট খেলার কথা রয়েছে টাইগারদের। এদিকে ওই মাসেই দ্বিতীয় সপ্তাহে মাঠে গড়াতে যাচ্ছে আইপিএল। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে যখন টেস্ট সিরিজ খেলবে বাংলাদেশ দল, ফিট থাকলে সাকিব আল হাসান তখন খেলবেন আইপিএলে।

দেশের জার্সিতে টেস্ট বাদ দিয়ে আইপিএলে খেলার জন্য ছুটি চেয়েছিলেন বাংলাদেশের সেরা অলরাউন্ডার। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) তার ছুটির আবেদন মঞ্জুর করেছে। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের চলছে সাকিবের বাংলাদেশী ভক্তদের সমালোচনার ঝড়। অনেকে ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন।

এরই মধ্যে আলোচনায় এসেছে সকিবের ২০১৪ সালে তার ফেসবুক পেজে দেওয়া একটি স্ট্যাটাস। সেবছর কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবকে হারিয়ে আইপিএলের চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। শুক্রবার দেশের খেলা বাদ দিয়ে আইপিএল খেলার বিষয়টি জানাজানি হলে তার সেই পুরনো স্ট্যাটাসটি ভাই'রাল হয়।

সাকিবের ভক্ত-সম'র্থকরা সেই স্ট্যাটাসে বিভিন্ন কমেন্ট ও রিএক্ট জানাচ্ছেন। তাছাড়া শেয়ারও করছেন অনেকেই। স্ট্যাটাসটির কমেন্টে আরেফিন মিজান নামে একজন লিখেছেন, “শুধু দেশপ্রে'ম থাকলে হবে না, সাথে রেমিট্যান্সও প্রয়োজন। সবাইকে বুঝতে হবে।”

২০১৪ সালের ৬ জুলাই দেয়া সেই স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে দেয়া হলো- ‘আমি সব সময় দেশের হয়ে খেলতে চাই। অন্তত আরো দশ বছর জাতীয় দলের হয়ে খেলতে চাই আমি। আইপিএল জিতে বাংলাদেশে এসে আমি বলেছি, বাংলাদেশের হয়ে একটি ম্যাচ জিতে যে আনন্দ, পুরো আইপিএল ট্রফি জিতেও সে আনন্দ নেই। এতেই আমা'র দেশের হয়ে খেলার ব্যাপারে ধারণা নিতে পারেন। অনেকেই মনে করে আমি ২০১৯ বিশ্বকাপের পর অবসর নিবো। কিন্তু সত্য হলো আমি ২০২৩ সালের বিশ্বকাপও খেলতে চাই।’

তবে, টেস্ট খেলতে না গেলেও দেশের মাটিতে লঙ্কানদের বিপক্ষে সাকিব ওয়ানডে সিরিজ খেলবেন বলে জানিয়েছেন বিসিবি ক্রিকেট পরিচালনা কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান। তবে তাকে ছুটি দেওয়া যে বাংলাদেশের ক্রিকে'টের জন্য ভালো কোনো দৃষ্টান্ত হচ্ছে না সেটাও স্বীকার করেছেন তিনি। সাকিবের ছুটি মঞ্জুর করার পর মোস্তাফিজুর রহমানকেও ছুটি দেওয়ার একটা আগাম ভাবনা সেরে রেখেছে বিসিবি। দুই বছর বিরতির পর এই বাঁহাতি পেসারও আইপিএলের এবারের আসরে দল পেয়েছেন। ভিত্তিমূল্য এক কোটি রুপিতে তাকে দলে নিয়েছে রাজস্থান রয়্যালস।

উল্লেখ্য, আইপিএলের চতুর্দশ আসরের নিলামে কলকাতা নাইট রাইডার্স ৩ কোটি ২০ লাখ রুপিতে দলে নিয়েছে সাকিবকে। তাকে নিতে শাহরুখ খানের মালিকানাধীন দলের সঙ্গে চেষ্টা চালায় পাঞ্জাব কিংসও। কিন্তু পেরে ওঠেনি। ফলে ফের সাকিবের ঠিকানা হয়েছে কলকাতা। এই ফ্র্যাঞ্চাইজিটির হয়ে আগেও ছয় মৌসুম খেলেছেন তিনি। তবে সাকিব দল পাওয়ার পরই প্রশ্ন ওঠে, এবারের আইপিএলে কি খেলতে পারবেন তিনি? পারলেও কতটুকু সময় তাকে পাবে কলকাতা?

২০০৯ সালে প্রথম আইপিএলের নিলামে নিজের নাম উঠিয়েছিলেন সাকিব। সেবার কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি আগ্রহী হয়নি তার ব্যাপারে। ২০১১ আসরে তাকে ৪ লাখ ২৫ হাজার ডলারে দলে নেয় কলকাতা। এরপর ২০১৮ সালে ২ কোটি রুপিতে তাকে নিয়েছিল সানরাইজার্স। তবে জুয়াড়ির সঙ্গে আলাপের তথ্য গো'পন করে নিষিদ্ধ থাকায় এই ক্রিকেটার খেলতে পারেননি সবশেষ আসরে। ফলে তাকে ছেড়ে দেয় সানরাইজার্স।

Back to top button