ছে'লের সঙ্গে ‘অশালীন’ ছবি শ্রাবন্তীর, ভক্তদের তীব্র আক্রমণ

শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়, টলিউডের সেই অ'ভিনেত্রীদের মধ্যে পড়েন যিনি বহু বছর ধরে প্রথম সারির অ'ভিনেত্রীদের জায়গায় আজও সমানভাবে টিকে রয়েছেন।

নিজের অ'ভিনয় গুণে আজও মুগ্ধ করে চলেছেন বাংলা চলচ্চিত্রের দর্শকদের। বয়স বাড়লেও মুখে এবং কাজে নেই বয়সের ছাপ। কেবল অ'ভিনয় এবং ছবির জন্যই যে সংবাদ শিরোনামে থেকেছেন তা নয়।

তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়েও বারে বারে খবরে উঠে এসেছে তাঁর নাম। তিনবার বিয়ে, বিবাহবিচ্ছেদ সমস্ত কিছু নিয়ে কখনও রাখঢাক ছিল না শ্রাবন্তীর।

পরিচালক রাজীব বিশ্বা'সকে বিয়ে করেন ২০০৩ সালে। সেই বিয়ে বহুদিন টিকলেও পরে তা ভেঙে যায়। বিবাহবিচ্ছেদের পর প্রে'ম, ভালবাসা থেকে খানিক বিরতি নিয়েছিলেন শ্রাবন্তী।

জো'র কদমে তখন ছবি করে চলেছেন তিনি। তারপরই ২০১৬ সালে কৃষাণ বৃজকে বিয়ে করেন। বছর ঘোরার আগেই সেই বিয়েতে ইতি টানেন শ্রাবন্তী।

স'ম্পর্কের ওঠাপড়ার মাঝে আবারও খুঁজে পান ভালবাসার মানুষকে। রোশন সিং। ২০১৯ সালে গাঁটছড়া বাঁধেন রোশনের সঙ্গে। তবে সেই সংসারও টিকছে না। বিচ্ছেদের পথে হাটতে চলেছে তারা।

স'ম্পর্কের এই ওঠাপড়ার মাঝে একজন সর্বদা ছিল শ্রাবন্তীর পাশে। ছে'লে অ'ভিমুণ্য চট্টোপাধ্যায়। ছে'লের সঙ্গে শ্রাবন্তীর স'ম্পর্ক যেন দিনে দিনে আরও দৃঢ় হয়েছে।

মায়ের ব্যক্তিগত জীবনের ওঠাপড়ায় ভ'য় পায়নি ছোট্ট অ'ভিমুণ্য। এখন বেশ বড় হয়ে গিয়েছে সে। তবে ছোট থেকেই শক্ত হাতে ধরেছিল মায়ের হাত।

যার কারণে ছে'লের সঙ্গে মায়ের স'ম্পর্ক একেবারে বন্ধুর মত। তবে এই স'ম্পর্কে চোখ বেকিয়েছিল একাধিক মানুষ। ছে'লের সঙ্গে তোলা রোম্যান্টিক ছবিতে নাক শিঁট'কিয়েছিল সমাজের একদল ব্যক্তি।

ঘনিষ্ঠতায় মজে না হলেও ছে'লের সঙ্গে প্যাশিনেট রোমান্টিক ছবি তুলেছিলেন শ্রাবন্তী। সে ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করতেই রে রে করে এল নেটিজেনরা।

ছে'লের সঙ্গে এমন ‘অশালীন’ ছবি কেন তুলবেন শ্রাবন্তী। এমনই কুমন্তব্যে ভরতে শুরু করল সোশ্যাল মিডিয়া। তাদের নিয়ে একের পর এক ট্রোলাররা করে গেল মন্তব্য।

যদিও এ বিষয় কোনও প্রতিক্রিয়াই দেননি শ্রাবন্তী। নিজের ছে'লের সঙ্গে কেমন স'ম্পর্ক রাখবেন তা তিনি অবশ্যই সমাজের কিছু মানুষদের থেকে শিখবেন না।

Back to top button