কলেজ শিক্ষিকা বউ ও ছেলেকে নিয়ে নতুন তথ্য দিলো মামুনের মা

নাটোরে কলেজশিক্ষক খায়রুন নাহারের মৃ’ত্যুতে স্বামী মামুন হোসেনের বাড়িতে চলছে শো’কের মাতম। এলাকাবাসীও এতে শো’ক প্রকাশ করেছে। সোমবার (১৫ আগস্ট) বাড়িতে গিয়ে এমন চিত্র দেখা যায়। স্থানীয়রা মামুনের মাকে সান্ত’না দিচ্ছেন। মামুনের মা বলেন, আমার বেটার মত পবিত্র বেটা নেই, কোনো দিন কোনো মেয়ের দিকে তা’কায়নি।

কোনো একটা খা’রা’প, ব’দ নে’শা নেই। আমার বেটা খারা’প একটা মেয়ের পাল্লায় পড়ে গেছে। যার তিন ছাওয়ালের মা, ৪০ বছর বয়স। সেই বেটা প্রেমে পড়ি বিয়া করি ফেলিছে তা আমি স্বপ্নেও জানি না। বেটা ঈদের দিন বউ নিয়ে বাড়ি আসল, বেটার বউ আমার পা জো’ড়ায় ধ’রিল। আমায় মা’ফ করি দাও। আমি তোমাগ বেটার বউ হইছি।

তখন আমি ও আল্লাহ কি করবো, আজ ঈদের দিন কোট-আদালত বন্ধ। আজ আমি মা’ফ না করি তালি আল্লা আমাক মাফ করবি লা। (কান্নায় ভে’ঙে পড়ে) সেই বেটার বউকে আমি মা’ফ করি নিছি। সেই বেটার বউ আমাক থু’ইয়া কি কইরা গেল রে। মামুনের সহপাঠীরা বলেন, মামুন খুব ভালো ছেলে। একসঙ্গে লেখাপড়া করেছি।

মামুনের খালা বলেন, মামুন ভালো ছাওয়াল ছিল। ছোট ছাওয়াল বড় হয়ে লেখাপড়া করে বিয়ে করেছে তা তো আমাদের জানা নেই। হ’ত্যা’ নাকি আ’ত্মহ’ত্যা’ এমন প্রশ্নের জবাবে মামুনের চাচি বলেন, নিজেই আ’ত্মহ’ত্যা’ করিছে। বউডা গেছে আমাদের সামনেই কয়ে বলিই গেছে।

এইডা ভাল ছিল, ছাওয়াল ভালো ছিল। আমাদের সামনে হাসি খেলি গেল। আর এই কা’মডা যে করল। কি জন্য আ’ত্মহ’ত্যা করলো তা আমাদের জানা নেই। ছাওয়াল টাকা চাইছে সাত লাখ টাকা। মোটরসাইকেল কেনার জন্য। এই চা’পেই মনে হয় এই কাজ করছে।

Back to top button