বস্তাপ্রতি চালের দাম বাড়ল ৩০০ টাকা

দেশে এত চাল মজুত থাকার পরও দাম বাড়ার কারণ খুঁজে পাচ্ছে না সাধারণ মানুষ। ব্যবসায়ীদের দাবি, জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির কারণে পরিবহন খাতে খরচ বেড়ে গেছে। এ কারণে নরসিংদীতে সব ধরনের চালের দাম বেড়েছে। আজ বৃহস্পতিবার ১১ আগস্ট সকালে সরেজমিনে এ দৃশ্য দেখা যায়। ময়মনসিংহ, শেরপুর, আশুগঞ্জ, কুষ্টিয়া, নওগাঁসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নরসিংদীতে চাল আনতে ট্রাক ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ গুনতে হচ্ছে বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

এদিকে দেখা গেছে, নরসিংদী বড় বাজারে আড়তগুলোতে চালে পরিপূর্ণ। মিনিকেট, নাজিরশাইল ও মোটাচালসহ বিভিন্ন রকমের চালে সয়লাব। তবে তেলের দাম বাড়ার পরপরই নরসিংদীতে বস্তাপ্রতি চালের দাম বেড়েছে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা। প্রতি কেজি চালের বতর্মান দাম বেড়েছে ৪ টাকা থেকে ৫ টাকা। এতে করে নিম্ন আয়ের মানুষ হিমশিম খাচ্ছে। খুচরা ক্রেতাদের দাবি, এভাবে প্রতিদিন নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে গেলে না খেয়ে মরে যেতে হবে।

এ বিষয়ে নরসিংদী বড় বাজারে খুচরা বিক্রেতা আব্দুল সালাম মিয়া বলেন, বর্তমানে বাজারের চালের দাম মিনিকেট ৬৬ থেকে ৬৭ টাকা, নাজিরশাইল ৭০ টাকা ও মোটা চাল ৫০ থেকে ৫২ টাকা করে। চালের দাম বাড়ার কারণে আমাদের বিক্রি কমে গেছে। এখন বাজারে আগের মতো ক্রেতা আসে না। এভাবে চলতে থাকলে আমরা ব্যবসা করে টিকে থাকতে পারব না।

এদিকে চাল কিনতে আসা শরিফুল ইসলাম জানান, ৫০ কেজিপ্রতি বস্তায় দাম বেড়েছে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা। পরিবহন খরচের তুলনায় খুচরা পর্যায়ে চালের দাম বেশি। নরসিংদীর আড়ত সমিতির সাধারণ সম্পাদক সেলিম ভূঁইয়া বলেন, তেলের দাম বৃদ্ধিতে গত কয়েক দিনে চালের দাম প্রতি বস্তায় ২০০ থেকে ৩০০ টাকা বেড়েছে। তিনি আরও বলেন, যদি তেলের বাজার স্বাভাবিক হয়, তাহলে চালের বাজারও স্বাভাবিক হয়ে যাবে।

Back to top button