আমরা একটু অসুবিধায় আছি, টাকার ঘাটতি পড়ে গেছেঃ পরিকল্পনামন্ত্রী

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, ‘আমরা বিদ্যুৎ দিছি ঘরে ঘরে। এখন একটু কম আয়র (আসতেছে), আর এখান (এক) মাস ক্লিয়ার অইযিব (হয়ে যাবে) ইনশাআল্লাহ। আমরা একটু অসুবিধার মাঝে আছি, টাকার ঘাটতি পড়ে গেছে। আমরার লাগি (জন্য) না, অন্যান্য দেশের মাতব্বরে লাড়াই (যুদ্ধ) করের। আর এটা আমাদের ওপর এসে পড়েছে। আমরা সবুর (সহ্য) করে বসে আছি। ঊর্ধ্বে এক দেড় মাস। সব কিছু ঠিক হয়ে যাবে।’

মঙ্গলবার (৯ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে সুনামগঞ্জের শান্তিগঞ্জ উপজেলার এফআইডিবি হলে নিজ তহবিল থেকে আর্থিক অনুদান বিতরণকালে পরিকল্পনামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এম এ মান্নান আরো বলেন, ‘বন্যায় যাদের ক্ষতি হয়েছে তাদের কষ্ট দূর করার জন্য সরকার চেষ্টা করেছে আরও করবে। সরকার আমরার লগে (সাথে) আছে। আরেকটা কথা শেখা হাসিনার, যেটায় আমি অবাক হয়ে গেছি। যারা অসহায় ভূমিহীন, জমি নাই, ভিটাও নাই তারারে দুই শতক জায়গা সাফ কেওয়ালা কইরা ঘরসহ দের। আমার জীবনে আমি এর থেকে ভালো কাজ দেখছি না।’

তিনি বলেন, ‘এই বারের বন্যায় গরিবের কষ্ট হয়েছে বেশি। কাঁচাঘর, সনের ঘর নিছেগি ঠেলে। সরকার সহায়তা করছে আরও করবো। আপনাদের কাছে অনুরোধ সরকারকে একটু টাইম দেওয়ার। শেখ হাসিনা গরিবের সরকার। ভোটে সরকার বানিয়েছেন। আপনারা ভোট দিয়েছেন এর লাগি সরকার হয়েছেন। আবার ভোট দেওয়ার সময় আসবে, মনে হলে ভোট দিবা না দিলে নাই। আল্লাহ সাক্ষী, ন্যায় বিচারের ভোট দিবা, কে আপনার উপকার করছে তাকে ভোট দিবা। যে উপকার করছে না তাকে ভোট দিবা না।’

অনুষ্ঠানে শান্তিগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান প্রভাষক নুর হোসেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আনোয়ারুজ্জামান, পরিকল্পনামন্ত্রীর ব্যক্তিগত রাজনৈতিক সচিব আবুল হাসনাতসহ উপজেলা প্রশাসনের অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় উপজেলার ৪২৮ জনের মাঝে ১২৫০ টাকা করে ৫ লাখ ৩৫ হাজার টাকা বিতরণ করা হয়।

Back to top button