খুলনার ৩ ডিপো থেকে তেল উত্তোলন বন্ধ, সরবরাহও হবে না ১৪ জেলায়

কমিশন ও ভাড়া বৃদ্ধির দাবিতে খুলনায় পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা অয়েল ডিপো থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন এবং ১৪ জেলায় জ্বালানি তেল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। রবিবার (৭ আগস্ট) সকাল ৮টা থেকে এ কর্মবিরতি পালন করা হচ্ছে। এ সময় বিভাগের কোনো ডিপো থেকে জ্বালানি তেল উত্তোলন করা হয়নি।

জানা গেছে, এদিন সকাল ৮টা থেকে বাংলাদেশ ট্যাংকলরি মালিক সমিতি ও জ্বালানি তেলের পাম্প মালিক সমিতি কর্মবিরতি পালনের ঘোষণা দেয়। তাই পদ্মা, মেঘনা ও যমুনা তিনটি ডিপোই তেল উত্তোলন ও বিপণন বন্ধ রেখে এ কর্মসূচি পালন করছে। ফলে খুলনাসহ ১৪ জেলায় তেল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে।

জ্বালানি তেল বিক্রির কমিশন ও ট্যাংক-লরির ভাড়া না বাড়ানোর প্রতিবাদে বাংলাদেশ জ্বালানি তেল পরিবেশক সমিতি ও বাংলাদেশ ট্যাংক-লরি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের খুলনা বিভাগীয় কমিটি তেল উত্তোলন ও সরবরাহ বন্ধ করে দিয়েছে। এই দুই সংগঠনের নেতারা জানান, খুলনা বিভাগের ১০ জেলা ও বৃহত্তর ফরিদপুরের চার জেলায় জ্বালানি তেল সরবরাহ বন্ধ রয়েছে। তবে পেট্রোল পাম্প থেকে জ্বালানি তেল বিক্রি করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ ট্যাংক-লরি ওনার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হলেও ট্যাংক-লরির ভাড়া বাড়ানো হয়নি। সরকার ভাড়া নির্ধারণ করে না দিলে আমরা ভাড়া বাড়াতে পারি না। ট্যাংক-লরিতে তেল নিয়ে পেট্রোল পাম্পে যেতে আগের তুলনায় খরচ বেড়েছে। তিনি বলেন, আগের তুলনায় তেলের দাম বাড়ানো হলেও পাম্প মালিকদের কমিশন বাড়ানো হয়নি। সে কারণে আমরা এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

Back to top button