বিধবার সঙ্গে মেম্বারের অনৈতিক সম্পর্ক, দেখা করতে গিয়ে ধরা

টাঙ্গাইল সদর উপজেলার দাইন্যা ইউনিয়নের শ্যামারঘাট এলাকায় এক নারীর (৫৫) ঘর থেকে ছিলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের এক নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য সোহাগ মিয়াকে আটক করেছে এলাকাবাসী।

বুধবার (৩ আগস্ট) ভোরে ওই এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয়। পরে সোহাগের মামা নুরজালের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়।

অভিযুক্ত ব্যক্তি চরপাকুল্লা গ্রামের মো. ফজলুল হকের ছেলে সোহাগ মিয়া (৩৫)।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, এখানে সোহাগের মামারবাড়ি হওয়া সূত্রে শ্যামারঘাট এলাকায় যাতায়াত রয়েছে। ভুক্তভোগী নারীর সঙ্গে ইউপি সদস্য সোহাগের দীর্ঘদিনের অনৈতিক সম্পর্ক ছিল। পরে মঙ্গলবার (২ আগস্ট) রাত ১২টায় সোহাগ ভুক্তভোগী নারীর ঘরে প্রবেশ করে এবং বুধবার ভোর ৪টা পর্যন্ত অবস্থান করে। এ সময় এলাকাবাসী তাদের আটক করে।

এ বিষয়ে বিধবা নারী জানান, প্রায় চার বছর আগে আমার স্বামী মারা যায়। এরপর থেকেই সোহাগ বিয়ের প্রলোভনে দীর্ঘদিন ধরে শারীরিক সম্পর্ক করে। গতকাল রাত ১২টায় সোহাগ আমার ঘরে আসে আজ বুধবার ভোর ৪টা পর্যন্ত অবস্থান করে। পরে এলাকাবাসী আমাদের আটক করে।

এ বিষয়ে অভিযুক্ত ছিলিমপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৫নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য সোহাগ জানান, যা করেছি ভুল হয়েছে। এখন বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা চলছে।

Back to top button