‘সরকার গ্যাস, বিদ্যুতের সিস্টেম লস কমিয়ে আনার চেষ্টা করছে’

প্রধানমন্ত্রীর বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদবিষয়ক উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-ইলাহী চৌধুরী বলেছেন, সরকার গ্যাস, বিদ্যুতের সিস্টেম লস কমিয়ে আনার চেষ্টা করছে। তেলের দামের সঙ্গে বিদ্যুৎ, এলএনজি ও কয়লার একটি সম্পর্ক রয়েছে। এই মুহূর্তে তেলের দাম কমানোর কোনো সম্ভাবনা নেই।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিট্রিবিউশন কোম্পানির গ্যাস লাইন মনিটরিংয়ের জন্য স্থাপিত সিসি ক্যামেরার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে জ্বালানি উপদেষ্টা এসব কথা বলেন।

তৌফিক-ই-ইলাহী বলেন, ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধের কারণে সারাবিশ্বে জ্বালানি তেলের সংকট দেখা দিয়েছে। এই সংকট মোকাবিলা করার জন্য দেশের ভেতর তিতাস গ্যাসের যেসব অবৈধ সংযোগ রয়েছে, তা বিচ্ছিন্ন করতে পারলে গ্যাস সাশ্রয় হবে। গ্যাসের প্রেসার ও প্রাপ্যতা বাড়বে। তিনি বলেন, যারা তিতাস বা বিদ্যুতের লোক বলে মিথ্যা পরিচয় দিয়ে অবৈধ সংযোগ দিচ্ছে, দেশের জ্বালানি খাতের ক্ষতি করছে তাদের শাস্তির আওতায় আনতে হবে। এ ছাড়া ডিজেলের দাম বৃদ্ধির বিষয়টি হিসাব-নিকাশ করে করতে হবে।

তিনি বলেন, ডিজেলের ডিমান্ড কমানোর জন্য ডিজেল চালিত পাওয়ার প্ল্যান্টগুলো বন্ধ রাখা হয়েছে। ডিজেল দিয়ে প্ল্যান্ট চালালে অনেক খরচ। তাই নিজেরা একটু কষ্ট সহ্য করে এই খরচ বাঁচানো হচ্ছে। অনুষ্ঠানে তিতাস গ্যাসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হারুন অর রশিদ বলেন, তিতাস গ্যাসের কোনো কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে। ইতোমধ্যে ৪ জনকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে। ৫৪ জনের বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা দেওয়া হয়েছে।

নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো. মনজুরুল হাফিজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, পেট্রোবাংলার চেয়ারম্যান নাজমুল আহসান, তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী হারুনুর রশীদ মোল্লা ও বিকেএমইএর নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম প্রমুখ।

Back to top button