মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে ফেসবুকে বিজ্ঞপ্তি দিয়ে প্রশংসায় ভাসছে ছেলে

সঙ্গী ছাড়া জীবন হয়তো চলতে পারে। কিন্তু তা-কি উপভোগ করা যায়। জীবনের তাগিদে তাই জীবনসঙ্গী বেছে নেয় মানুষ। সেই বেছে নেওয়ার প্রক্রিয়া কখনো ছাড়িয়ে যায় ভৌগলিক সীমানা, কখনো ভেঙে দেয় বয়সের বাধা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রায়ই চলে সঙ্গী নির্বাচন নিয়ে নানা আলোচনা ও সমালোচনা। এই তো গত ২-৩ দিন আগে নেটিজেনদের কাছে আলোচনায় ছিল, ‘ প্রেমের পর কলেজ শিক্ষিকার সঙ্গে ছাত্রের বিয়ে’। আর এবার ব্যতিক্রমী খবর হলো, মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন ছেলে।

ফেসবুক পোস্টে বিজ্ঞপ্তিতে যা ছিল-

মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দেন ঢাকার কেরানীগঞ্জের বাসিন্দা মোহাম্মদ অপূর্ব। গত শনিবার (৩০ জুলাই) রাত পৌনে ১০টার দিকে জীবনসঙ্গী খুঁজে দেওয়ার ‘বিসিসিবি মেট্রিমনিয়াল: হেভেনলি ম্যাচ’ নামের ফেসবুক গ্রুপে মায়ের জন্য পাত্র চেয়ে পোস্ট করেন অপূর্ব। তিনি ‘জি অ্যান্ড টেক’ নামে একটি অনলাইন ব্যবসা-প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা এমডি।

বিজ্ঞপ্তিতে অপূর্ব লিখেছেন, বাবা মারা গেছেন। তাই আম্মুর জন্য পাত্র খুঁজছি। মায়ের জন্য কেমন পাত্র চান, তা-ও বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেছেন ছেলে। মায়ের সঙ্গে মানানসই পাত্র চান। পাত্র ঢাকার আশপাশের হলে ভালো হয়। শিক্ষাগত যোগ্যতা কম হলে সমস্যা নেই।

পাত্রের পেশা চাকরি বা ব্যবসা-যেকোনোটা হতে পারে। ধর্মকর্ম করার পাশাপাশি পাত্রকে সাদামাটা হতে হবে। যিনি মায়ের জীবনের বাকি চলার পথের সঙ্গী হতে পারবেন। পাত্রের বয়স ৪২ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে হলে ভালো হয়।

বিজ্ঞপ্তি শেষ করা হয়েছে এভাবে, পারিবারিকভাবেই মায়ের বিয়ে দিতে ইচ্ছুক। বিজ্ঞপ্তির সঙ্গে মা-ছেলে ও মায়ের একার ছবি যুক্ত করা হয়েছে।

এরপর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ পোস্টটি ছুঁয়ে গেছে মানুষের হৃদয়। নেটিজেনরা নানারকম আলোচনা করছেন সামাজিক মাধ্যমে। কেউ কেউ ছেলেকে প্রশংসা করে স্যালুট জানিয়েছেন।

নুরুল ইসলাম নামে একজন লিখেছেন, এ উদ্যোগকে আমি শুভ কামনা জানাই। এটা খুবই ভালো একটা উদ্যোগ। দোয়া করি উনি যেনো একজন ভালো জীবন সঙ্গী খুঁজে পান এবং ওনার পরিবার নিয়ে সবাই যেনো বাকি জীবন ভালো থাকেন।

কে এম শহিদ উন নবী নামে একজন লিখেছেন, ইসলাম ধর্মে এর গুরুত্ব, প্রয়োজনীয়তা ও সৌন্দর্য্য অনেক আগেই তুলে ধরা হয়েছে। শুভ কামনা রইল সকলের জন্য।

দারুল কারার নামে একজন লিখেছেন, সুন্দর সিদ্ধান্ত। বয়সকালে সবার একজন সঙ্গীর প্রয়োজন। এটা অনেক বাঙালি বোঝে না। এ রকম অনেকে একাকীত্ব জীবনযাপন করছে, কিন্তু পরিবারের সদস্যরা বুঝতে পারে না তাদের কষ্ট। এজন্য আমাদের মনোভাবের পরিবর্তন হওয়া দরকার।

আনম্যানড ইউজার নামে একজন লিখেছেন, অসাধারণ সিদ্ধান্ত। সাধারণত বাবা মায়ের শুন্যতাগুলো বেশিরভাগ ছেলে মেয়েই স্বীকার করতে চায় না। এরা ধারণাও করতে পারবে না, যে এরা কতবড় একটা ট্যাবু ভেঙ্গে ফেলেছে। তিনি তাদের এ সিদ্ধান্তকে অভিনন্দন জানান।

শহিদুল ইসলাম নামে একজন লিখেছেন, পৃথিবীতে বাঁচতে হলে অবশ্যই একজন জীবন সঙ্গী দরকার হয়। সাধুবাদ জানাই এ সিদ্ধান্তকে।

মোহাম্মদ মাসুদ নামে একজন লিখেছেন, অবৈধ সম্পর্ক থেকে অবশ্যই বিয়ে উত্তম। সেটা ১ম বা ২য় বিয়ে হোক। অভিনন্দন এ সিদ্ধান্তকে।

এইচ এম শাকিল আকতার নামে একজন লিখেছেন, সাধুবাদ জানাই। আমাদেরও মানসিকতা পরিবর্তন করা দরকার। সবার জীবনেই সঙ্গী দরকার। এটাই চিরন্তন, এটাই সুন্দর।

তানভির আহমেদ সিদ্দিক নামে একজন লিখেছেন, ভালো লাগলো এ বিষয়টি। বিধবাদের বিয়ে দেওয়া উচিত।

তবে, কিছু লোক আবর বিষয়টি নিয়ে মজাও করেছেন। তারা বিষয়টিকে হাস্যকর বলে খারাপ চোখে দেখেছেন।ূ

Back to top button