পড়াশোনার পাশাপাশি ডাকাতি

বগুড়ায় বার্মিজ চাকু, চাইনিজ কুড়াল ও দেশীয় অস্ত্রসহ ৫ শিক্ষার্থী‌কে গ্রেফতার করেছে বগুড়া জেলা পুলিশ। রোববার রাতে শহরের ভাটকান্দি ব্রীজ এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। তারা বড় কোন অপরাধ সংঘটনের জন্য একত্রে সংঘটিত হয়েছিল বলে সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছেন বগুড়া পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী। বাড়তি আয়ের জন্য ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছিল পাঁচ শিক্ষার্থী।

গ্রেফতাররা হলেন, শহরের সেউজগাড়ী এলাকার ইব্রাহিম হোসেনের ছেলে ইসতিয়াক ইব্রাহিম ইমন (২০), একই এলাকার মৃত হাবিবুর রহমান এর ছেলে সিয়াম হোসেন বাধন (২৫), ঠনঠনিয়া স্টাফ কোয়ার্টার এলাকার ফিরোজ পশারী রানার ছেলে পারভেজ পশারী (২০), পুরান বগুড়া এলাকার আয়নুল হক এর ছেলে আহসান হাবিব বাবুল ও একই এলাকার তোফাজ্জল হোসেনের ছেলে তৌহিদুল ইসরাম তানিম।

গ্রেফতারের সময় তাদের কাছ থেকে পুলিশ দুইটি বড় আকারের ছোরা, একটি চাইনিজ কুড়াল, একটি বার্মিজ চাকু, ৫টি পটকাসহ তিনটি মোটর সাইকেল আটক করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ সুপার সুদীপ কুমার চক্রবর্ত্তী জানান, গ্রেফতাররা প্রত্যেকেই শিক্ষার্থী। গতকাল রাতে ঘটনাস্থলে ১০/১২ জনের একদল চক্র অস্ত্রসহ সমবেত হয়ে অপরাধ সংঘটনের জন্য অবস্থান করছিলো। বিষয়টি পুলিশ জানতে পেরে সেখানে অভিযান চালায়। সেখানে পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে চক্রের সদস্যরা পালানোর চেষ্টা করে।

এ সময় পুলিশ তাদের মাঝে থেকে ৫ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। গ্রেফতাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে তারা অপরাধ সংঘটনের উদ্দেশ্যে ঘটনাস্থলে অবস্থান করছিলো। আজকেই তাদের আদালতে পাঠানো হবে। তাদের রিমান্ডের জন্য আবেদন করা হবে। রিমান্ডে নিলে তাদের সংঘবদ্ধ হওয়ার প্রকৃত কারণ বেরিয়ে আসবে।

পুলিশ সুপার আরো জানান, বগুড়াকে নিরাপদ জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে জেলা পুলিশ তৎপর রয়েছে। কিশোর এবং যুবক বয়সী যারা উগ্রভাবে চলাফেরা করে তাদের নজরদারিতে রাখা হচ্ছে। কারো কাছে অস্ত্র পেলে তাকে আটক করা হচ্ছে। বগুড়াকে নিরাপদ জেলা হিসেবে গড়ে তুলতে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Back to top button