পাগলীটি মা হয়েছে, বাবা হয়নি কেউ

‘মা’এই ছোট্ট শব্দের মাঝেই লুকিয়ে আছে পৃথিবীর সব মায়া, মমতা, অকৃত্রিম স্নেহ, আদর, নিঃস্বার্থ ভালোবাসার সব সুখের কথা। পৃথিবীতে সন্তানদের কাছে সবথেকে আপন ও কাছের মানুষ হচ্ছে মা।মানসিক ভারসাম্যহীন,মাথা গোঁজার ঠাই নেই, ঘর- সংসারও নেই। থাকেন বরিশাল নদী বন্দরের যাত্রী ছাউনিতে। তবু বুকে আগলে রেখেছেন তার নবজাতক শিশুকে, কেউ যাতে নিয়ে যেতে না পারে।

বরিশাল নদীবন্দর এলাকায় মানসিক ভারসাম্যহীন এক নারী ফুটফুটে ছেলে সন্তান প্রসব করেছেন। শনিবার সকাল ৯টার দিকে নৌবন্দরের রাস্তার ওপর ত্রিশোর্ধ্ব এই নারী সন্তান জন্ম দেন। কিন্তু তিনি বলতে পারছেন না সন্তানের পিতা কে। এ অবস্থায় শিশুটির পিতৃত্ব নির্ধারণের দাবি উঠেছে।

বরিশাল সমাজ সেবা অধিদপ্তরের প্রবেশন অফিসার (মহানগর) শ্যামল সেন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, কোতোয়ালি মডেল থানা এবং সমাজসেবার উদ্যেগে ওই নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে।

এই বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার সহকারী উপ -পরিদর্শক রুমা পারভীন জানান, নবজাতক সহ ওই নারীকে সন্ধ্যায় নৌ-বন্দরের কাছেই ভাটারখাল ঈদগাহ এলাকার বাসিন্দা আ. মালেকের বাসার একটি কক্ষে রাখা হয়েছে। তাকে প্রয়োজনীয় শীত বস্ত্র, খাবার এবং ওষুধ দেওয়া হয়েছে। স্থানীয় বিটপুলিশের সদস্য তানিয়া বেগম নবজাতক ও প্রসূতির দেখভাল করছেন।

তানিয়া বেগম বলেন, ৮/১০ বছর ধরে এই নারী নৌ-বন্দরে থাকেন। নাম বলেন মায়া বেগম। ঠিকানা বলেন নগরীর কউনিয়া পুরানপাড়া। তবে আচরণ ও কথাবার্তায় বোঝা যায় তিনি (নারী) অপ্রকৃতস্থ। সন্তান লালন পালনের সক্ষমতাও তার নেই। তবে সে সন্তানকে কিছুতেই হাতছাড়া করতে রাজি না।

বরিশাল নৌ বন্দর এলাকার হোটেল শ্রমিক রুহুল আমিন জানান, শনিবার সকাল ৯টার দিকে ওই নারী নদী বন্দর এলাকায় প্রসব বেদনায় কাতরাচ্ছিলেন। তখন পার্শ্ববর্তী ভাটারখাল কলোনির মহিলাদের খবর দেওয়া হয়। সেখান থেকে কয়েকজন নারী এসে সন্তান প্রসবের জন্য ভারসাম্যহীন ওই নারীকে সহায়তা করেন। পরে তিনি একটি ছেলে সন্তান জন্ম দেন। সন্তান জন্ম দেওয়ার পরে ওই নারীকে রুহুল আমিন খাবার ও বিছানাপত্র দিয়েছেন।

রুহুল আমিন জানান, একাধিক নিঃসন্তান দম্পতি নবজাতককে নিতে চাইলেও ওই নারী (মা) দিতে চাইছেন না, বরং বুকে আগলে রাখছেন। পরিচয় জানতে চাইলে নারী শুধু নিজের নাম মায়া ছাড়া আর কিছু বলতেও পারছেন না। ফুটফুটে শিশুটিকে একটু দেখার জন্য সকাল থেকে নৌ-বন্দরে বহু মানুষ এসেছেন। মানুষ দেখলেই ওই নারী নবজাতককে বুকে আগলে ধরেন, কেউ যাতে নিয়ে যেতে না পারে।

Back to top button