রাত সাড়ে ৩টায় নিপুন আমাকে এসএমএস পাঠায় : পীরজাদা হারুন

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন নিয়ে নাটক চলছেই। সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদ নিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন জায়েদ খান ও নিপুন আক্তার। রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) জানা যাবে আদালতের রায়। এই নির্বাচন ও এর পরবর্তী ঘটনাপ্রবাহ বেশ নাটকীয় মোড় নিয়েছে। এরই মধ্যে নতুন তথ্য ফাঁস করেছেন শিল্পী সমিতির নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করা পীরজাদা হারুন।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে অনেক বিষয় নিয়েই খোলাখুলিভাবে আলোচনা করেছেন তিনি। ফাঁস করেছেন অনেক গোপন তথ্য। তিনি বলেন, ‘নিপুন আমাকে একটা ম্যাসেজ দিয়েছে রাত সাড়ে ৩টার দিকে। ম্যাসেজে সে (নিপুণ) জানায়, আমার বাতিল ভোটগুলো আমার পক্ষে কাউন্ট করে দেন। কাউন্ট করে দিলেও (দেওয়া যায় না আইন মোতাবেক) জায়েদ খান ১১ বা ১২ ভোটে জিতে যায়।’

নিপুনের রিকুয়েস্ট করার সত্যতা প্রসঙ্গে পীরজাদা হারুন জানান, ‘আমার মোবাইলে প্রমাণ আছে। এ বিষয়টি আইনসঙ্গত হয়নি এবং এটা আমি কোনো মিডিয়ার সামনেও তুলিনি। গোপন কথা গোপন রাখাই ভালো। আর যেহেতু এই রিকুয়েস্ট অনুযায়ী, আমি কোনো কাজ করিনি। তার পক্ষে বা বিপক্ষে কোনো পদক্ষেপ নিইনি। তাই এই যে সে ম্যাসেজ পাঠিয়েছে, এটার কোনো গ্রহণযোগ্যতা বা কোনো মূল্য নেই। তবে প্রমাণ হিসেবে দাঁড় করতে পারেন, কিন্তু প্রমাণ হিসেবে দাঁড় করানোটা সমীচীন হবে না। একজনকে হেয় প্রতিপন্ন করা সমীচীন হবে না।’

প্রসঙ্গত, গত ২৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির ২০২২-২৪ মেয়াদের নির্বাচনের প্রাথমিক ফলে সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খানকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। তবে তার বিরুদ্ধে টাকা দিয়ে ভোট কেনাসহ নির্বাচনকে প্রভাবিত করার অভিযোগ আনলে ৫ ফেব্রুয়ারি সেই প্রেক্ষিতে আপিল বোর্ড জায়েদের প্রার্থিতা বাতিল করে। পরে নির্বাচনের আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যান সোহানুর রহমান সোহান প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী চিত্রনায়িকা নিপুণকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সাধারণ সম্পাদক পদে জয়ী ঘোষণা করেন। এরপর থেকেই বিষয়টি ‘বেআইনি’ বলে দাবি করে আসছেন চিত্রনায়ক জায়েদ খান। প্রার্থিতা বাতিলের বিষয়টি নিয়ে তিনি আদালতের দ্বারস্থ হন। গেল সোমবার (৭ ফেব্রুয়ারি) আপিল বোর্ডের দেওয়া সিদ্ধান্ত স্থগিত করেন হাইকোর্ট।

পরদিন মঙ্গলবার (৮ ফেব্রুয়ারি) সকালে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আপিল বিভাগে আবেদন করেন অভিনেত্রী নিপুন। সেই আবেদনের ওপর বুধবার (৯ ফেব্রুয়ারি) চেম্বার আদালতে শুনানি হয়। শুনানিতে জায়েদ খানের পক্ষে দেয়া হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদে ‘স্থিতাবস্থা’ জারি করেন চেম্বার আদালত।

আগামীকাল রোববার (১৩ ফেব্রুয়ারি) পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে শুনানির পর সিদ্ধান্ত আসবে, কে হবেন শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক।

Back to top button